ফটো জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশন আয়োজিত স্মরণ সভায় খুলনার সিটি মেয়র
স্টাফ রিপোর্টার ঃ খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ¦ তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, খুলনার উন্নয়ন প্রশ্নের প্রতিটি আন্দোলন সংগ্রামের সাথেই আলহাজ¦ লিয়াকত আলীর সম্পৃক্ততা ছিল। তার দেখানো পথে চলার মধ্যদিয়ে খুলনার উন্নয়নে সকলের ভূমিকা রাখা উচিত বলেও তিনি মন্তব্য করেন। খুলনা বিশ^বিদ্যালয়, খুলনা ওয়াসা, রূপসা সেতু, আধুনিক রেল ষ্টেশন, মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, গল্লামারী স্মৃতিসৌধ, সোনাডাঙ্গার সোলার পার্কসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের জন্য খুলনার সকল শ্রেণি-পেশার মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করতে আলহাজ¦ লিয়াকত আলীর ছিল অগ্রণী ভূমিকা। এক কথায় তিনি সমাজ পরিবর্তনে প্রতিটি ক্ষেত্রেই বলিষ্ঠ ভূমিকা রেখে গেছেন।
দৈনিক পূর্বাঞ্চলের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ও খুলনা আধুনিক রেল ষ্টেশনসহ অনেক উন্নয়ন কর্মকান্ডের স্বপ্নদ্রষ্টা, কিংবদন্তী সাংবাদিক আলহাজ্ব লিয়াকত আলীর ৬ষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় সিটি মেয়র এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ ফটো জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশন খুলনা জেলা শাখা গতকাল রোববার সন্ধ্যায় এ সভার আয়োজন করে। খুলনা প্রেসক্লাবের হুমায়ুন কবির বালু মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এ সভায় খুলনার সাংবাদিক নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ অংশগ্রহণ করেন। এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন, খুলনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ শেখ হারুনুর রশীদ।
এসোসিয়েশনের জেলা সভাপতি মো: জাহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক পাপ্পুর পরিচালনায় এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন, খুলনা প্রেসক্লাবের সভাপতি এসএম জাহিদ হোসেন, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম মধু, খুলনা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক পূর্বাঞ্চলের নির্বাহী সম্পাদক আহমদ আলী খান, প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন মিন্টু, খুলনা মহানগর মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার অধ্যাপক আলমগীর কবির, বরিশাল বিভাগীয় কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার রুহুল আমিন হাওলাদার, মহানগর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি শ্যামল সিংহ রায়, খুলনা প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ বিমল সাহা, দৈনিক খুলনা টাইমস’র সম্পাদক সুমন আহমেদ, খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো: শাহ আলম, সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজন সম্পাদক এড. কুদরত-ই-খুদা, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব শাহীন জামাল পন, দৈনিক পূর্বাঞ্চলের চীফ রিপোর্টার অমিয় কান্তি পাল, বাংলা নিউজ টুয়েন্টি ফোর ডট কম’র ব্যুরো এডিটর মাহবুবুর রহমান মুন্না, বৃহত্তর আমরা খুলনাবাসীর সাধারণ সম্পাদক এসএম মাহবুবুর রহমান খোকন, বাংলাদেশের কমিউনিষ্ট পার্টি-সিপিবি খুলনা মহানগর সাধারণ সম্পাদক এড. মো: বাবুল হাওলাদার, নিরাপদ সড়ক চাই-নিসচা খুলনা মহানগর সভাপতি এসএম ইকবাল হোসেন বিপ্লব, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন-বিএফইউজে’র নির্বাহী সদস্য এইচ এম আলাউদ্দিন প্রমুখ।
এছাড়া এসময় উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও খুলনা শাখার সভাপতি ডা: শেখ বাহারুল আলম, খুলনা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক হাসান আহমেদ মোল্লা, দৈনিক পূর্বাঞ্চলের বার্তা সম্পাদক অরুণ সাহা, সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের খুলনা মহানগর সহ-সভাপতি সরদার আবু তাহের, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক এম,এ মান্নানসহ বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিবৃন্দ।
এসময় দোয়া পরিচালনা করেন, হাজ¦ী কল্যাণ ফাউন্ডেশন খুলনার নির্বাহী পরিচালক আলহাজ¦ শেখ মুহা: সাহেব আলি।
স্মরণ সভায় বক্তারা আরও বলেন, আলহাজ¦ লিয়াকত আলী বিগত ছয় বছর আগে মৃত্যুবরণ করলেও খুলনাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি তার নামে নগরীতে একটি সড়কের নামকরণ আজও বাস্তবায়ন হয়নি। এজন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে সংশ্লিষ্টদের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য এগিয়ে আসা উচিত।
বক্তারা আরও বলেন, আলহাজ¦ লিয়াকত আলী শুধু সংবাদপত্র বা সাংবাদিকদের উন্নয়নেই নয়, বরং তিনি সমাজ উন্নয়নে প্রতিটি কর্মকান্ডে অগ্রভাগে থেকে সকলকে সাহস যুগিয়েছেন। তিনি ছিলেন সকলের জন্য একজন নির্ভরযোগ্য ও গ্রহণযোগ্য ব্যক্তি। মফস্বল পত্রিকাকে কিভাবে জাতীয় ও আর্ন্তজাতিক পর্যায়ে পরিচিত করানো যায় সেটিও তিনি শিক্ষা দিয়ে গেছেন। তিনি ছিলেন সাংবাদিকদেরও শিক্ষক। সাংবাদিকদের মানোন্নয়নে খুলনা প্রেসক্লাব থেকে বিদেশ সফর তিনিই শুরু করেন। বিদেশেও তিনি বাংলাদেশের জন্য অনেক কাজ করেছেন। বিশেষ করে বিশ^ সপ্তাশ্চর্য প্রতিযোগিতায় সুন্দরবনকে ভোট দেয়ার জন্য দেশে-বিদেশে তার নেতৃত্বে ক্যাম্পেইন হয়েছে। আলহাজ¦ লিয়াকত আলী কর্মীদের চাহিদা বুঝতেন। যে কারণে তার সম্পাদনায় প্রকাশিত দৈনিক পূর্বাঞ্চলের কর্মীরাও তার কাছে ঋণী।
বক্তারা আরও বলেন, আলহাজ¦ লিয়াকত আলীসহ খুলনার সব গুনীজনকে নিয়ে সকলের উদ্যোগে একটি প্রকাশনা করা যেতে পারে। এজন্য যে কোন একটি প্রতিষ্ঠানকে দায়িত্ব নেয়া উচিত বলেও বক্তারা উল্লেখ করেন।