স্টাফ রিপোর্টার ঃ খুলনা মেডিকেল কলেজের আরটি পিসিআর ল্যাবে গতকাল বুধবার ৪৭০টি নমুনা পরীক্ষার পর ৬৪জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর মধ্যে খুলনার ৫০জন, বাগেরহাটের সাতজন, সাতক্ষীরার একজন, চট্টগ্রামের একজন, ঢাকার একজন, যশোরের একজন, পিরোজপুরের একজন, গোপালগঞ্জের একজন এবং ঝিনাইদহের একজন রয়েছেন। খুলনা মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা: মো: মেহেদী নেওয়াজ এ তথ্য জানান।
এদিকে, খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল দু’জনের মৃত্যু হয়েছে বলে হাসপাতালের আরএমও ডা: সুহাস রঞ্জন হালদার জানান। তিনি বলেন, গতকাল মৃত্যুবরণকারী দু’জনের বাড়িই বাগেরহাট জেলায়। এরা হলেন, শরণখোলার রায়েন্দার মো: আ: মজিদ(৭৫) এবং মংলার মোরশেদ সড়কের সোনা বড়–(৬০)। করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর শরণখোলার আ: মজিদকে ১০ মে এবং মংলার সোনা বড়–কে গতকালই খুমেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছিল।
অপরদিকে, খুলনা মহানগরীর পাঁচটি এবং জেলার নয়টি কেন্দ্রে গতকাল এক হাজার ৪০জনকে করোনাভাইরাসের টিকার দ্বিতীয় ডোজ দেয়া হয়েছে। অর্থাৎ গতকাল পর্যন্ত মোট এক লাখ ২২ হাজার ৬শ’ জনকে করোনা ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজের টিকা দেয়া হয়। এখন আর বাকী রয়েছে দু’হাজার ৪শ’ টিকা। যা দিয়ে আর হয়তো দু’দিন চলতে পারে। এর মধ্যে নতুন টিকা না আসলে দু’দিন পর হয়তো দ্বিতীয় ডোজও বন্ধ হয়ে যেতে পারে। এর আগে টিকা না থাকায় ২৬ এপ্রিল থেকে প্রথম ডোজ দেয়া বন্ধ রয়েছে।