টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে লেগুনা ও কাভার্ড ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে নারী শ্রমিকসহ চারজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছে কমপক্ষে ১২ জন। নিহত ও আহতরা সবাই শ্রমিক এবং লেগুনার যাত্রী। শনিবার ভোরে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার গোড়াই ইউনিয়নের নাসির গ্রুপের কোদালিয়া জুঁই-যুথি ফিলিং স্টেশনের সামনে এ সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- গাইবান্ধা জেলার সাদুল্লাপুর উপজেলার গোবিন্দরায় গ্রামের সুলতান মিয়ার স্ত্রী জাহানুর বেগম (২০), একই উপজেলা ও একই গ্রামের অমূল্য দাসের ছেলে তপন চন্দ্র দাস (২৫), একই উপজেলার কোনাপাড়া গ্রামের আয়নাল হকের স্ত্রী রাশিদা বেগম (২৯) এবং টাঙ্গাইল জেলার গোপালপুর উপজেলার আল আমিন মিয়ার স্ত্রী মর্জিনা বেগম (২৮)। আহত ১২ জনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তাদের মধ্যে পাঁচজনের অবস্থা গুরুতর।
মির্জাপুর উপজেলা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অফিসের স্টেশন অফিসার মো. আরিফুর রহমান এবং গোড়াই হাইওয়ে থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক মো. নাজমুল আলম জানান, শনিবার ভোরে কালিয়াকৈর থেকে মির্জাপুরগামী একটি লেগুনা ১৫-১৫ জন যাত্রী নিয়ে নাসির গ্রুপের সামনে এলে বিপরীত দিক থেকে আসা টাঙ্গাইল থেকে ঢাকাগামী মালবাহী একটি কাভার্ড ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই জাহানুর ও তপন চন্দ্র মারা যান। পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের সহায়তায় আহতদের উদ্ধার করে কুমুদিনী হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুরে মর্জিনা ও রাশিদা মারা যান। ঘটনার পর কাভার্ড ভ্যান নিয়ে চালক পালিয়ে যায়। গোড়াই হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মনিরুজ্জামান মনির বলেন, নিহতদের লাশ আইনি প্রক্রিয়া শেষে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আহতদের চিকিৎসা চলছে। থানায় মামলা হয়েছে। কাভার্ড ভ্যানটি আটকের চেষ্টা চলছে।