সংসদ সদস্য শেখ সালাউদ্দিন জুয়েল
ও যুবনেতা শেখ সোহেলের উদ্যোগ

মোঃ সাহেব আলী ঃ মহামারী করোনায় আক্রান্ত অসহায় গরীব রুগীদের বিনামূল্যে অ্যাম্বেুলেন্স সেবা প্রদান করছে সেখ সালাহউদ্দীন জুয়েল ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস। ফোন দিলেই পৌঁছে যাচ্ছে ফ্রি এ্যাম্বুলেন্স। রাত দিন ২৪ ঘন্টার যে কোন সময়ে ফোন দিলে দরজায় হাজির হয় এ্যাম্বুলেন্স।
একইভাবে শেখ আবু নাসের অক্সিজেন ব্যাংক এবং শেখ সোহেল অক্সিজেন ব্যাংক ২৪ ঘন্টা খুলনাবাসীকে বিনামূল্যে অক্সিজেন সেবা প্রদান করছে। যেখানে হাসপাতাল ও অক্সিজেন ব্যাংকগুলো করোনা আক্রান্ত রুগীদের অক্সিজেন সেবা দিতে হিমসিম খাচ্ছে। সেখানে এরই মধ্যে খুলনাবাসীর পাশে বিনামূল্যে অক্সিজেন সেবা প্রদান করা হচ্ছে। ০১৯৪৯-৮৮৩৭৭৩ ও ০১৪০৩৪৭৭০৯৭ নম্বরে ফোন করলেই ফ্রি এ্যাম্বুলেন্স ও অক্সিজেন পৌঁছে যাচ্ছে।
কারোর কাছ থেকে কোন সহযোগিতা না নিয়েই খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ সালাউদ্দিন জুয়েল ও যুবলীগের কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য ও বিসিবি’র পরিচালক শেখ সোহেল নিজেদের ব্যক্তিগত অর্থে এ্যাম্বুলেন্স ও অক্সিজেন সেবা প্রদান করছেন।
নগরীর শেরেবাংলা রোডস্থ শহীদ শেখ আবু নাসের এর নিজস্ব বাড়িতে কন্টোল রুমের মাধ্যমে শতাধিক পরিশ্রমী ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীদের সমন্বয়ে স্বেচ্ছাসেবক টিমের মাধ্যমে এ সেবা প্রদান করা হচ্ছিল। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে তারা ২৪ ঘন্টা দায়িত্ব পালন করছে।
গতকাল বৃহস্পতিবার নগরীর কেডিএ এভিনিউয়ের তেঁতুলতলা মোড় সংলগ্ন বেসিক ব্যাংকের পাশে কন্ট্রোর রুমটি স্থানান্তর করা হয়েছে। এখানে সমন্বয়কের দায়িত্ব পালন করছেন সাবেক ছাত্রনেতা এবং খুলনা জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান চৌধুরী রায়হান ফরিদ ।
অক্সিজেন সেবা ও অ্যাম্বুলেন্স সেবা তত্তাবধায়ন করছেন খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা, দপ্তর বিষয়ক সম্পাদক মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, মহানগর যুবলীগের আহবায়ক সফিকুর রহমান পলাশ, সাবেক ছাত্রনেতা শেখ মোঃ আবু হানিফ, খুলনা মহানগর যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক ও ছাত্রলীগের সভাপতি শেখ শাহাজালাল হোসেন সুজন, ২৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়েজুল ইসলাম টিটো এবং মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান রাসেল ।
এ ব্যাপারে খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ সালাউদ্দিন জুয়েল বলেন, মহানগরীতে করোনায় আক্রান্তের হার প্রতিনিয়ত বেড়েই চলেছে। হাসপাতালে নেয়ার প্রয়োজনীয়তা দেখা দিলে দ্রুত এ্যাম্বুলেন্স প্রয়োজন হয়। অনেক পরিবার আছে যাদের ভাড়ার এ্যাম্বুলেন্সে আপনজনদের হাসপাতালে নেয়ার সামর্থ্য নেই। তাদের কথা চিন্তা করেই আমি নগরবাসির জন্য দু’টি ফ্রি এ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস চালু করেছি। প্রয়োজন হলে এ্যাম্বুলেন্সের সংখ্যা আরো বাড়ানো হবে। খুলনাবাসীর পাশে আমি ও আমার পরিবার সার্বক্ষণিকভাবে আছি এবং থাকব ইনশাহ্ আল্লাহ।
যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ সোহেল বলেন, আমার পরিবার সারাজীবন সাধারণ মানুষের কল্যাণে কাজ করেছে, মানুষের বিপদে আপদে আমরা মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছি। তিনি আরও বলেন, খুলনার সাথে আমার নাড়ীর সম্পর্ক। মহামারী করোনার সময়ের খুলনাবাসীর বিপদে আমি এবং আমার পরিবার সর্বাত্মক সহযোগিতা করে যাচ্ছি। করোনা শুরু থেকে খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ সালাউদ্দিন জুয়েল, আমি ও আমার পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা খুলনাবাসীর ঘরে ঘরে ত্রাণ সমাগ্রী পৌছিয়ে দিয়েছি। করোনায় আক্রান্তদের অক্সিজেন ও অ্যাম্বুলেন্স সেবার কোন সংকট হবে না। যা যা করা প্রয়োজন আমরা সেগুলো করবো। খুলনাবাসীর সেবা দিতে আমরা সবসময় প্রস্তুত। ইনশাআল্লাহ আগামীতে এই ধারা অব্যাহত থাকবে ।